Top News

সময়টা এখন নিজে বাঁচার। বেঁচে থাকতে হবে, প্রটেকশন নিজের কাছে

ইন্ডিভিজুয়াল লেভেলে কিছু প্রটেক্টিভ পরামর্শ দেব আজকে। একটু মন দিয়ে বিষয় গুলো মাথায় রাখবেন।
.
১. Stay home, stay home, stay home.
.
WHO বলছে যারা হেলথ কেয়ার ওয়ার্কার তাদেরকে করোনার প্রিকোশন নিতে হবে এয়ারবর্ন হিসেবে।
.
২. বাহিরে গেলে যদি মাস্ক পরেন। তাহলে লম্বা সময় ধরে মাস্ক পরার নিয়ম কি হবে?
.
আগে সাবান দিয়ে দুই হাত এবং মুখমন্ডল ধুয়ে নেন। সার্জিকাল মাস্ক বা যে মাস্কই আছে সেটা পরেন।
.
মাস্ক পরার ক্ষেত্রে অবশ্যই অবশ্যই মাথায় রাখেন মাস্কের হাতল দুটো ছাড়া মাস্কের আর কোথাও হাত দেয়া যাবে না, যাবে না, যাবে না। হাতল ধরে কানে দেবেন, হাতল ধরে খুলবেন।
.
নেক্সটঃ মাস্ক পরে বাইরে গেলেন। একবারও হাত দিয়ে মাস্ক টাচ করবেন না। হাতলও না। এইজন্য মাস্ক যাতে ডিসপ্লেস না হয় সেভাবেই পরে বের হবেন। ঘরে ফেরার আগ পর্যন্ত মাস্কে হাত দেওয়া নিষেধ, নিষেধ, নিষেধ।
.
নাক চুলকাবে- সহ্য করেন। ঘেমে যাবেন – সহ্য করেন। গলায় কফ আসছে – গিলে ফেলেন। বাট মাস্কে হাত দেওয়া যাবে না, খোলা যাবে না, সরানো যাবে না। যতক্ষণ বাইরে আছেন সব টলারেট করেন, টলারেট করতে শেখেন। কোন ওয়ে নাই এছাড়া।
.
যদি অফিসে যান একটা মাস্ক এক্সট্রা রাখেন ব্যাগে। কারণ যদি খুলে ফেলতেই হয় সেটা আলাদা পলি ব্যাগে রেখে ভালটা পরবেন। এবং এক্ষেত্রেও পরার আগে সাবান দিয়ে হাত এবং মুখমন্ডল ধুয়ে নেবেন। এবং অবশ্যই মাস্কের হাতল ছাড়া আর কোথাও হাত লাগাবেন না।
.
মাস্কের সংকট? সার্জিকাল মাস্ক একাধিকবার ইউজ ছাড়া ওয়ে নাই?
.
সেক্ষেত্রে বাইরে থেকে ফেরার পর সেই মাস্ক ডিটার্জেন্ট পানিতে চুবিয়ে রাখেন আধা ঘন্টা। মাস্কের হাতল ধরে খোলেন, ডিটার্জন্টে চোবান, এরপর হাত আর মুখমণ্ডল সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলেন।
.
৩. ঘরের বাইরে যদি যেতেই হয়ঃ একটা পরিবার থেকে একজন মানুষ দিনে একবার বের হবেন।
.
ঘরের একাধিক মানুষ বাইরে জব করলে সেক্ষেত্রে বের হতেই হবে। কিন্তু অপশন থাকলে একজন মানুষ বের হবে।
.
ঘর থেকে বের হবেন দিনে জাস্ট একবার। যারা অফিস করেন, অফিস থেকে ফেরার পথে বাজারটুকু করে ফেরেন। কারণ যতবার বের হবেন ততবার রিস্ক বাড়বে।
.
বাজারের কোন আইটেম আনতে ভুলে গেছেন? দশবার ভাবেন ওটা ছাড়া আজকের দিনে সংসারে ডিজাস্টার হয়ে যাবে কিনা। যদি না হয় তাহলে পরের দিনের জন্য তুলে রাখেন। আজকে আর বের হয়েন না।
.
৪. ঘরে ফেরার পদ্ধতি কি হবে?
.
প্রস্তুতিটা ঘর থেকে বের হবার আগেই নিতে হবে।
.
বাথরুমে ধোয়া জামা, টাওয়েল রেখে আসেন যেন বাইরে থেকে ফেরার পর ইনফেক্টেড হাতে সেগুলো ধরতে না হয়।
.
ফেরার পর অফিস ব্যাগ পারলে দরজার পাশেই রেখে দেন। চেষ্টা করবেন নেক্সট দিন অফিস যাবার আগে আর যেন হাত দিতে না হয়।
.
ঘরে ঢুকে হাত দিয়ে কোন কিছু স্পর্শ করার আগেই সোজা বাথরুমে চলে যাবেন। পরনের কাপড় মাস্ক সব ডিটার্জেন্ট পানিতে চুবিয়ে ফেলেন। সাবান দিয়ে আপাদমস্তক গোসল করে তারপর বের হন।
.
৫. ঘরের নানি দাদিদের প্রতি রিকোয়েস্ট, নাতি নাতনিকে আদর করা থেকে বিরত থাকেন। নাতি নাতনি বয়েসের কারণে করোনার ভয়াবহতা থেকে বেঁচে গেলেও আপনি ইনসিকিয়োর্ড। বাপ/মা থেকে নাতি নাতনি, নাতি নাতনি থেকে আপনি। আর আপনি বয়েসের কারণে সবচেয়ে ডেঞ্জারাস পজিশনে আছেন।
.
৬. আপনার মোবাইল, মানিব্যাগ চাবি ঘড়ি স্যানিটাইজার দিয়ে ক্লিন করে ফেলেন।
.
৭. লাস্ট বাট নট লিস্ট, Never touch your face even at home.
.
যতই সাবান দিয়ে ঘষে গোসল করেন, নিশ্চিৎ হওয়ার উপায় নাই যে আপনার হাত ভাইরাস মুক্ত। আর ইনফেকশন হওয়ার মূল রাস্তা হচ্ছে আপনার নাক, মুখ আর চোখ। সো, নেভার টাচ ইয়োর ফেইস। নেভার।
.
খুব চুলকালে ঘেমে গেলে কুনুইর ওপরের অংশ দিয়ে কাজ সারেন। আপনার হাতের কব্জি থেকে পরের অংশটুকু বিশেষত হাতের তালু আপনার শত্রু, শত্রু, শত্রু।
.
SAVE THE WORLD
by
STAYING PANICKED, STAYING HOME
.
©ডাঃ যুবায়ের আহমেদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close